একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠার জন্য মূলধনের ব্যবস্থা কিভাবে হবে

February 28, 2021
Image

সাধারণত যখন একটি ভালো ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করা হয় তখন অনেকটা উদ্বেগের সৃষ্টি হয়। সেক্ষেত্রে অনেক পরামর্শ আছে যা বিবেচনা করা যেতে পারে। ব্যবসার মালিককে অবশ্যই ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করার আগে সে সম্পর্কে একটি পরিকল্পনা করতে হবে। মূলধন ছাড়া ব্যবসা সম্ভব না। মূলধন হল ব্যবসার এক ধরণের চাবিকাঠি। আপনি যেকোন ধরণের ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করতে যান না কেন মূলধন অবশ্যই লাগবে। মূলধন ছাড়া ব্যবসা শুরু করা সম্ভব না। এখন প্রশ্ন হল মূলধন কোথা থেকে আসবে? ব্যবসার মূলধন যোগারের অনেকগুলো সম্ভাব্য উপায় থাকতে পারে। যাইহোক, আমাদের আগে বুঝতে হবে যে কেন আমরা ব্যবসা করব? এমন অনেক লোক আছে যারা নতুন নতুন ব্যবসা প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে উৎসাহী থাকে, কারণ তারা জানে যে একটি ভালো ব্যবসা থেকে আরো একটি ভালো বিনিয়োগের উপায় হতে পারে। আমরা আমাদের ভবিষ্যতের জন্য বিনিয়োগের ক্ষেত্রে উদ্বিগ্ন থাকি। আমাদের আর্থিকভাবে অটল থাকতে হবে এবঙ ব্যবসাকে আয়ের এটি ভালো উৎস হিসেবে বিবেচনা করতে হবে। অর্থ বিনিয়োগ করে আয়ের জন্য যেসব ব্যবসায়িক কৌশল অবলম্বন করা হচ্ছে সেগুলো আবশ্যই আমরা প্রত্যাখ্যান করতে পারিনা। অর্থাৎ আমরা যা বিনিয়োগ করি সেই বিনিয়োগেরও কিছু কৌশল আছে আবঙ কিভাবে বিনিয়োগ থেকে মুনাফা করতে হয় তারও কিছু কৌশল আছে যেগুলো আমাদেরকে মানতেই হবে।এক্ষেত্রে সাধারণত ব্যবসায় আমারা যা বিনিয়োগ করি আয় তার চেয়ে অনেক বেশি দেখায়। ব্যবসার উদ্দেশ্য অর্থ সঙরক্ষণ করা নয় বরঙ অর্থ তৈরি করার জন্য।

আপনি যে ব্যবসাটা শুরু করতে যাচ্ছেন সে সম্পর্কে যদি আপনার কোন প্রাথমিক ধারণা না থাকে, যথাযথ নির্দেশনা এবঙ পর্যাপ্ত মূলধন না থাকে, তাহলে সে ব্যবসাটা যেটা আপনি শুরু করতে যাচ্ছেন সেটা শুরু করা কোন সহজ কাজ নয়। ব্যবসার প্রয়োজনীয় মূলধন-ই হল একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করার মূল ভিত্তি। বিনিয়োগ করার পূর্বে আগে অর্থ সঙরক্ষণ করা আরো একটি ভালো ধারনা। এভাবে আপনি আপনার নতুন ব্যবসার জন্য একটি ভাল বাজেট তৈরি করতে পারবেন, কিন্তু এটা আপনার মূলধনের জন্য ঝুকিপূর্ণ হতে পারে। যদিও সকল ধরণের ব্যবসাতেই ঝুকি আছে। এবাবে সফল হয়েছে এমন অনেক ব্যবসার উদাহরণ আছে। সর্বোপরি একটি ভালো ব্যবসা প্রতিষ্ঠার জন্য ব্যবসায়ের মূলধনের ভালো উৎসই হলো সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

এছাড়াও মূলধনের জোগারের আরো অনেক ধরণের উৎস আছে। আপনার স্থাণীয় কিছু ব্যাঙক হতে পারে এমন একটি উৎস। তারা আপনাকে আপনার প্রয়োজনীয় অর্থ ধার দিতে পারে। আবার আপনার আত্বীয়-স্বজনও আপনার মূলধন যোগানের আরেকটি ভালো উৎস হতে পারে। আপনাকে আগে নিশ্চিত করতে হবে যে, আপনি যে ব্যবসা করতে যাচ্ছেন তা বিশ্বাসযোগ্য যাতে করে তারা আপনাকেও বিশ্বাস করতে পারে। ব্যাঙকের ক্ষেত্রে আপনাকে অনেক প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিতে হতে পারে। এটা আপনার জন্য প্রথমে কিছুটা বিরক্তিকর হতে পারে কিন্তু শেষ পর্যন্ত এটাই হতে পারে আপনার চন্য সবচেয়ে বড় সহায়ক।

পূর্ববর্তী পোস্ট
উদেয়মান মধ্যবিত্ত ও অর্থনৈতিক উন্নতি
পরবর্তী পোস্ট
কার্যক্ষমতা বৃদ্ধির ৫টি উপায়

Related Posts