কার্যক্ষমতা বৃদ্ধির ৫টি উপায়

February 28, 2021
Image

১. আপনি ইমেইল ব্যবহারের সময়টা একটু নিয়ন্ত্রণে আনুন। তারপর এটাকে একটা সীমার মধ্যে নিয়ে আনুন। আপনার ইনবক্স-এ আসা সকল ইমেইল গুলোর মধ্যে সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণগুলোই দেখুন এব্ং উত্তর দিন। আর অপ্রয়োজনীয়গুলো উত্তর দেয়ার কোন প্রয়োজন নেই। সুতরা্ং, এগুলোর প্রতি আর কোন মনোযোগ নয়।

২. আপনার কাজ সম্পূর্ণ করার জন্য ২ টি তালিকা প্রস্তুত করুণ। একটাতে থাকবে সেসব কাজের তালিকা, যেগুলো আপনার জন্য অতি জরুরী এব্ং এ মাসের মধ্যেই করতে হবে। অন্যটিতে থাকবে একটু কম গুরুত্বপূর্ণ কাজের তালিকা , যেগুলো পরবর্তী ২ বা ৩ মাসের মধ্যে করলেও হবে। সর্বদা প্রথম তালিকাকেই প্রাধাণ্য দিতে হবে। সাধারণত, আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে সকল কাজের মধ্যে থেকে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজনীয় কাজটি এব্ং সেটা প্রাধান্য দিতে হবে। পরবর্তী কাজের তালিকাগুলোও অতি গুরুত্বসহকারে স্ংরক্ষণ করতে হবে। আপনার বেশিরভাগ সময় ব্যয় করুণ ১ ন্ং তালিকা নিয়ে। কিন্তু আপনি যখন কোন ছোট কাজ করার প্রয়োজন অনুভব করবেন যা ২ ন্ং তালিকায় আছে তখন সেটাকে বাছাই করে করতে হবে।

৩. কিছু শক্তি স্ংরক্ষণ করে রাখুন। মনে রাখবেন, অল্পও অনেক সময় অনেক বেশি হয়ে যায়। এর অর্থ হলো আপনি আপনার কর্মক্ষেত্রের চূড়ান্ত পর্যায় পর্যন্ত কাজ করবেন না। আপনি যদি কিছুই স্ংরক্ষণ না করেন, তাহলে পরবর্তী দিনে আপনি কোন কাজই সঠিকভাব সম্পাদন করতে পারবেন না।

৪. দিনের শেষে কমদামি এব্ং কম গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো ত্যাগ করুণ। আপনি এটা করবেন কারণ, আপনি যদি এটা না করেন তাহলে এগুলো সম্পাদনের জন্য আপনার আরো শক্তি অপচয় করার প্রয়োজন হবে। এর মাধ্যমে এটা বুঝায়না যে আপনি আপনার কাজে দেরি করছেন বর্ং আরো ভালভাবে কাজ করার জন্য শক্তি সঞ্চয় করছেন।

৫. আপনি যা করতে পেরেছেন সেজন্য নিজেই নিজেকে অভিনন্দিত করুন। কিন্তু আপনি কখন্ও নিজেকে অবজ্ঞা করবেন না। বর্ং যা আপনাকে আঘাত করে তা এড়িয়ে যান।

পূর্ববর্তী পোস্ট
একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠার জন্য মূলধনের ব্যবস্থা কিভাবে হবে
পরবর্তী পোস্ট
গ্রাম বাংলার আজ প্রয়োজন উদ্যোক্তার, ঋণের নয়