দুর্যোগে প্রয়োজনীয় ৪টি বস্তু

Image

দুর্যোগ যেকোনো সময়ই আঘাত হানতে পারে, যেমনটা সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন জায়গায় হয়েছে প্রতিকূল আবহাওয়ার বেশে। এজন্য পর্যাপ্ত প্রস্তুতি প্রয়োজন এবং তা না হলেও অন্ততঃ যে জিনিসগুলো হাতের কাছে থাকা উচিৎ সেরকম ৪টি জিনিসের বর্ণনা নিচে দেয়া হলঃ

পানি পানি ছাড়া বেঁচে থাকাই অসম্ভব। পান করা থেকে শুরু করে রান্না, শৌচকর্ম সহ সব কাজেই পানির প্রয়োজন। গ্যালন বা ২লিটার বোতলে পানি সংরক্ষণ করা উচিৎ। ভালভাবে পরিস্কার করে এর চেয়ে বড় ধারকেও পানি রাখা যেতে পারে। পানিকে পরিস্কার করতে ব্লিচ ব্যবহার করা যেতে পারে। আট ফোটা ব্লিচ এক গ্যালন পানিকে বিশুদ্ধ করতে পারে।

অস্থায়ী আবাসন দুর্যোগে ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়ে গেলে থাকার জন্য কাছেপিঠেই জায়গার প্রয়োজন। এজন্য অস্থায়ী বাড়িঘরের ব্যবস্থা করলে মানুষজন স্বাভাবিক বোধ করবে। নির্দেশিকা মোতাবেক এ ধরণের অস্থায়ী আবাসন দুর্গত মানুষের স্থায়ী আবাসন ঠিক না হওয়া পর্যন্ত আশার আলো হয়ে থাকবে।

রান্না ব্যতীত খাবার জিনিস খাবার ছাড়া মানুষ তিন সপ্তাহ কাটাতে পারে, তাই দুর্যোগকালীন সময়ে এমনসব খাবার রাখা উচিৎ যা রান্না ছাড়াই খাওয়া যায় কেননা রান্নার জন্য জ্বালানী তখন নাও পাওয়া যেতে পারে। সংরক্ষণযোগ্য এবং অনেক দিন রাখার মত খাবার, যেমনঃ টুনা মাছ, মাখন, খাদ্যবীজ, বাদাম, শুকনো ফল ইত্যাদি সংগ্রহে রাখা উচিৎ।

জ্বালানী ও আলোর উৎস রান্নাবান্না, তাপ কিংবা গাড়ি চালাতে হলেও জ্বালানীর প্রয়োজন। পাঁচ গ্যালন জগে গ্যাসোলিন কিংবা প্রপেন রাখা যেতে পারে। প্রপেন নিরাপদ, সহজে রাখা যায় এবং এর অনেক ব্যবহার রয়েছে। সম্ভব হলে শুকনো কাঠ রাখলে তাও খুব কাজে আসবে। এছাড়া আলোর উৎস হিসেবে গ্যাসলাইট, লন্ঠন, মোম ও ম্যাচের ব্যবস্থা করাও সমানভাবে জরুরী।

পূর্ববর্তী পোস্ট
চীনা কনসোর্টিয়াম ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এর সাথে যুক্ত হয়েছে
পরবর্তী পোস্ট
ব্যাবসায়িক কার্যাদি সহজ সাধারন রাখা

Related Posts